কিভাবে স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পটে যাবেন?

0 ৭১

যদি দিনাজপুরের কথা ভ্রমণের ক্ষেত্রে উঠে আসে, তাহলে সবচেয়ে প্রথমে মাথায় আসে স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পটের কথা। শুধু এটা আপনাদের আমাদের ক্ষেত্রে নয় সবার ক্ষেত্রে এরকম । আর এরকম হবেই না বা কেন এখানে রয়েছে চিত্তবিনোদনের জন্য সবচেয়ে ভালো জায়গা।

এই চিত্তবিনোদন কেন্দ্রটি নবাবগঞ্জ উপজেলার আফতাবগঞ্জ এ অবস্থিত। এর বিস্তৃতি ৪০০ একর ভূমির উপর। চাপ বিশাল জায়গা দখল করে অবস্থান করছে। দিনাজপুরের মূল শহর থেকে প্রায় ৫২ কিলোমিটার দূরে স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পট অবস্থিত । প্রতিবছর এখানে প্রচুর পর্যটকরা ঘুরতে আসেন সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য। শুধু পর্যটক নয় বিভিন্ন নাটক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা এখানে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য ছুটে আসেন। তাই এটি মানুষের মধ্যে দেখার জন্য আগ্রহে কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়ে গেছে।

স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পট এর সৌন্দর্য
স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পট রয়েছে কৃত্রিম লেক বৈচিত্র্যপূর্ণ বিভিন্ন ধরনের গাছ গাছালি, পাহাড়, উদ্যান, বিভিন্ন প্রতিকৃতি, কৃত্রিম পশুপাখি, শিশু পার্ক, ফুল বাগিচা, শালবাগান, নামাজ জায়গা, ঘোড়ার রথ, হংসরাজ সাম্পান, বিভিন্ন ভাস্কর্য বাজার, ডাকবাংলো এবং বিস্তৃত ভূমি নির্মিত আমাদের দেশের মানচিত্র। তাছাড়া আরও রয়েছে বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক পরিবেশের সৌন্দর্য আপনাকে একেবারে মোহনীয় করে তুলবে।

তাছাড়া এখানে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের পিকনিক স্পট। সেখানে পিকনিক সহ নানা ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রাত্রিবেলা থাকার জন্য সেখানে বেশ কয়েকটি কটেজ রয়েছে। সেগুলো হচ্ছে নীলপরী, সন্ধ্যাতারা, রজনীগন্ধা মেঠো ঘর, আর ভিআইপি কুঞ্জ। এ পাঁচটি কটেজ সবচেয়ে বড়। তাছাড়া এর বাইরে থাকার জন্য হোটেল রয়েছে। স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পট এর ভিতরে রয়েছে খাবার তরী জায়গা। সেখানে হাঁড়ি-পাতিলসহ বিভিন্ন ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে। আর এর ভিতরে নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে আবার একেবারে দরকার নেই। কারণ কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা বিষয়ে যথেষ্ট কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে।

স্বপ্নপুরী এমি মাউন্ট পার্কে প্রবেশমূল্য জনপ্রতি ৭০ টাকা।

যেভাবে স্বপ্নপুরী যাবেন

ঢাকা থেকে দিনাজপুরে যাওয়ার জন্য বাস অথবা ট্রেনে যেতে পারেন। বাস গুলো সাধারণত কল্যাণপুর এবং গাবতলী থেকে নির্দিষ্ট সময় পর পর ছেড়ে যায়।

বাস সার্ভিস গুলো হচ্ছে

  • নাবিল পরিবহন
  • এস আর ট্রাভেলস
  • এস এ পরিবহন
  • হানিফ এন্টারপ্রাইজ
  • কেয়া পরিবহন
  • শ্যামলী পরিবহন

বিভিন্ন রকম পরিবহন অনুযায়ী এর ভাড়া বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। সাধারণত ৬০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত বাস ভাড়া হয়ে থাকে।

রেল পরিবহন
কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে আন্তঃনগর দ্রুতযান এক্সপ্রেস রাত ০৮ টায় দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। আন্তঃনগর ট্রেন এক্সপ্রেস সকাল ১০ টায় যাত্রা শুরু করে। পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেন রাত ১০ টা ৪৫ মিনিটের দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। বিভিন্ন শ্রেণীর টিকেট কাটতে হয় এ ট্রেনগুলোতে। টিকিটের মূল্য সাধারণত জনপ্রতি ২০০ টাকা থেকে ৯০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

তারপর দিনাজপুর মূল শহর থেকে খুব সহজেই বাস কিংবা সিএনজি ভাড়া করে নিয়ে স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পটে যাওয়া যায়।

পিকনিক স্পর্ট এর জন্য যোগাযোগের ঢাকার ঠিকানা-
হোটেল সফিনা, ১৫২
ওসমান গনি রোড, আলু বাজার, ঢাকা
ফোন নাম্বার – ৯৫৫৪৬৩০।

দিনাজপুরে ঠিকানা
দিনাজপুর হোটেল কনিকা , স্টেশন রোড, দিনাজপুর
ফোন নাম্বার- ০৫৩১৬৩৭১১।

যেখানে থাকবেন

স্বপ্নপুরী পিকনিক স্পটে ভ্রমণের সময় আপনি সেখানকার কটেজগুলোতে থাকতে পারবেন। তাছাড়া দিনাজপুরে বেশকিছু পর্যটন হোটেল রয়েছে সেখানেও থাকতে পারেন।

হোটেলগুলো হচ্ছে

  • পর্যটন মোটেল – ০৫৩১৬৪৭১৮
  • হোটেল ডায়মন্ড – ০৫৩১৬৪৬২৯
  • হোটেল আল রশিদ- ০৫৩১৬৪২৫১
  • নিউ হোটেল – ০৫৩১৬৮১২২
  • হোটেল নবীন – ০৫৩১৬৪১৭৮

এসব হোটেলে প্রতি রাত্রে থাকার জন্য প্রায় দুইশত দুই থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত ব্যয় হয়।

সাবধানতা অবলম্বন
সব সময় দলগতভাবে থাকা।
টাকা ও মোবাইল ফোন সাবধানে রাখা
এসব আমাদের সম্পদ তাই এগুলো যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা।

যদি সময় থাকে তাহলে দিনাজপুরের অন্যান্য ভ্রমণের স্থান গুলো থেকে ঘুরে আসতে পারেন। যেমন- কান্তজীর মন্দির, রামসাগর দীঘি, লিচুবাগান, নয়াবাদ মসজিদ ইত্যাদি। এছাড়া গৃষ্ম কালে এখানকার আম খেয়ে দেখতে পারেন। কারণ এখানকার আম অনেক বিখ্যাত।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে নাস।